সরাসরি প্রধান সামগ্রীতে চলে যান

পোস্টগুলি

আগস্ট, ২০২২ থেকে পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে

অন্তহীন কথা - বাংলা উপন্যাস/ Bengali Novel

অতীনের কথা  অচেতন, সে এক অলীক অবচেতন, রহস্য আর মেঘের মত রহস্য দিয়ে ডুবিয়ে রাখা অচেতন । সত্যের  তীব্রতা বড় গাঢ় হতে শুরু করেছে। Sweet truth, সত্যের নির্দয়তা, প্রখরত্ত্বের, প্রবল বেগের কামনা ধ্বনিত হচ্ছে। Metaphore এক ধারণা তৈরি করে,  নিষ্ঠুর ধারণা, তীব্র ধারণা,  অকথ্য সত্য, কিন্তু দূরত্ব বাড়তে থাকছে, ভেসে আসছে  কোনো শব্দ, দূরত্বেরও কি কোনো  অনুভূতি তৈরি হয়?  করুণাময় অনুভূতি? তৈরি করতে পারে করুণাময় অনুভূতি? কোনো না বলা সত্যি কথা, যা বলা যায় না, যা বলতে গেলে পুরো ভাবনাটা তালগোল পাকিয়ে যেতে থাকে?unspeakable truth, নিজেদের মধ্যে প্রোথিত করে ফেলে poetic radiance? একটা, একটা  work of art ? নদী আসলে একটা রহস্য, তার পরতে পরতে লুকিয়ে রয়েছে সম্পর্কের  একটি রহস্য,  যা আমাদের তাদের কাছে টেনে নিয়ে যায়, কারণ তারা লুকানো জায়গা থেকে উঠে আসে এবং এমন একটা আশ্চর্য্য রুটে ভ্রমণ করে।  যা সবসময় একটা কালে স্থির  হয়ে থাকে।  না যেখানে আজ না সেখানে কাল, এই সময়ের মাপ যেন কেউ কোনোদিন খুঁজে পায় নি। থাকতেও পারে, আবার নাও থাকতে পারে।   Life, Loss আর knowledge সম্পর্কে এক অত্যাশ্চর্য ধ্যানে বৃত্ত

অ্যান ফ্র্যাঙ্ক এবং হলোকাস্ট সাহিত্য/ Anne Frank and Holocaust Literature

  অ্যান ফ্র্যাঙ্ক এর ডায়েরি এবং হলোকাস্ট সাহিত্য/ Anne Frank’s Diary and holocaust literature  অ্যান ফ্র্যাঙ্ক এর ডায়েরি ৭৫ বছর পরেও সাহিত্যে, বিশেষ করে হলোকাস্ট( Holocaust) সাহিত্যে একটি বিশেষ স্থান অধিকার করেছে। কেন আজও প্রাসঙ্গিক এই ডায়েরি?  অ্যান ফ্র্যাঙ্ক এর ডায়েরি যথাক্রমে থিয়েটার, চলচিত্র এবং টিভি সিরিজের জন্য অনেকবার অ্যাডাপ্টেড  হয়েছে। অ্যানিমেশন, কমিক্সের চরিত্রে এবং ছোটোদের বইতেও এই ডায়েরির ঘটনার বিবরণ, চরিত্রদের  দেখতে পাই আমরা- বেঁচে থাকার জন্য যুদ্ধ এবং সর্বোপরি বেঁচে থাকার আশা- যাকে বলতে পারি "অ্যাবাউট হোপ"- “about hope” এর মূল উপজীব্য হয়ে উঠেছে বারে বারে। অ্যান ফ্র্যাঙ্ককে জানতে চেয়েছি আমরা, কেমন ছিল তার লুকিয়ে থাকার দিনগুলো, ডায়েরির পাতায় পাতায় খুজেঁ নিতে চেয়েছি তাকে। অনেক কল্পকাহিনীর ভিত্তি করা হয়েছে এই ডায়েরিকে, যা সবচেয়ে বেশী ডানা মেলেছে ফিলিপ রথের লেখায়।  সোশ্যাল মিডিয়াতে ব্ল্যাক হিউমারের ( black humour) উৎস হিসাবে ব্যবহৃত হয়েছে এই ডায়েরির কন্টেন্ট।  বেস্ট সেলার (best-selling) কানাডিয়ান লেখক রোজমেরি সুলিভান (Rosemary Sullivan) সম্প্র

আমেরিকায় ভারতীয় লেখকেরা/Indian writers in america

ভারতীয় ভ্রমণ- লেখক এবং  ১৯ শতকের আমেরিকা ভ্রমণ/ 19th Century America and Early Indian Travel Writers  জাহাঙ্গীর কোঠারী : Image Courtesy : wikimedia common  42nd street, new york, circa 1880. | Image Courtesy : archives/wikimedia commons.  ইশুরী দাস এবং জাহাঙ্গীর কোঠারী ,  প্রথম ভারতীয় যাদের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণের  বিবরণ আমরা লিখিত আকারে পাই। কেমন ছিল তাঁদের সেই অভিজ্ঞতা?  ১৯ শতকের সময়কাল, দু'জন ভারতীয় নাগরিক বেরিয়েছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণে, তবে এক সঙ্গে নয়, মধ্য দিয়ে পেরিয়ে গেছে চল্লিশ বছর। এই এতো সময়ের  ব্যবধানে ভ্রমণ কাহিনীর মধ্যে কিন্তু কোনো অভূতপূর্ব এলিয়েন উপাদান থাকার সম্ভবনা নেই। যা থাকার তা হল বিদেশের মাটিতে দুজনের প্রায় একই ধরণের  অভিজ্ঞতা । ইশুরী দাস, উত্তর-পশ্চিম প্রদেশের একজন মিশনারী বা ধর্মপ্রচারক, তার আমেরিকা - আগমনের খবর ছড়িয়ে পরার উত্তেজনা বর্ণনা করেছেন এই ভাবে:    “natives of winchester had heard of the arrival of a foreigner from a distant country; and the curiosity of some, especially of the fair sex, was somewhat excited. those that had