সরাসরি প্রধান সামগ্রীতে চলে যান

পোস্টগুলি

জানুয়ারী, ২০২০ থেকে পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে

একটি দিন / ছোটগল্প সিরিজ- গল্প -২ / Bengali Short Story

''দাদু, ও দাদু, সৈন্য কি গো?''- একটু চমকে উঠলো তামলিং।  হাতের কাজটা থামিয়ে  তুয়াংলিংয়ের দিকে  তাকালো  মুখ তুলে  ।  '' এই কথা কোথা থেকে জানলে দিদিভাই?'' '' ওই তো, বাজারে গেছিলাম আজকে , সেখানেই তো সবাই বলাবলি করছিলো, সৈন্যরা নাকি আজকে মাঙ্গোগিরির নেতা শিশিমারাকে ধরে নিয়ে গেছে।   মাঙ্গোগিরি   কি গো দাদু, আর নেতা মানে কি ? ওই শিশিমারা সে কে গো ?''  এত  প্রশ্নের সামনে প'রে তামলিং এর মুখে  জোগায় না  কথা  ।   বাড়ির সামনে বসে গাছগুলোকে পরিচর্যা করছে বুড়ো তামিলিং। তারপর করবে বাগানের পরিচর্যা। সবজি বাগানে বুড়ো তামলিং সবজি ফলায়।  সারা বছরের পরিবারের খাবারের জন্য সবজি এখন  থেকেই আসে যে । পরিবার বলতে বুড়ো তামলিং, তার বৌ বুড়ি তুয়ানকে এবং দুটো নাতি নাতনি  তুয়াংলিং আর শিনবোনা। আরো দুজন ছিল এই পরিবারে, যাদের কথা ভাবতে গেলে.... '' ও দাদু, কি গো চুপ করে রয়েছো কোনো ?'' বুড়ো তামলিং  তাকালো  উদাস চোখ তুলে , সামনে দাঁড়িয়ে তুয়াংলিং ,চোখে কৌতূহল।  '' যা জানতে চাইছো দিদিভাই, সে কথা বলতে গেলে অনেক গল্প বলতে হয়। '

পুতুলের বাক্স / ছোটগল্প সিরিজ - গল্প - ১ / Bengali Short Story

বড় নিঃস্তব্ধ এই সন্ধ্যা।  শীতকালীন সন্ধ্যা, বড় দীর্ঘ।  সূর্য তাহার সকল প্রকার প্রাতঃকালীন কর্ম সমাপন করিয়া  নিদ্রা যাইতেছে। এই আসমানও যেন ক্লান্ত এবং অবসন্ন বোধ করিতেছে।  বিস্তীর্ন চরাচর ব্যাপী কেহ যেন গাঢ় বিষাদের রং ছড়াইয়া দিয়াছে ।  পক্ষীকুল নিজদিগের বাসায় ফিরিয়া যাইতে ব্যস্ত। ছোট বালক বালিকা পক্ষিগণ অপেক্ষায় আছে তাহাদের মাতাপিতার। খাদ্য  লইয়া আসিবে তাহারা । ভারি এক ভুরিভোজ হইবে ! সমস্ত দপ্তর- কল কারখানা ছুটি হইয়া গিয়াছে। পুরুষেরা আপিসের ব্যাগ গুছাইয়া নিজ গৃহ অভিমুখে রওয়ানা দিয়াছে। ছোট-ছোট ছেলেমেয়েগুলিকে গৃহিনী তাগাদা দিয়া পড়িতে বসাইয়াছে।  আজ জলখাবারে লুচি হইয়াছে। কর্তার আবার লুচি ফুলকো না হইলে মন ভরে না।  গৃহিণীর গা ধুইয়া একখানা ধোয়া সুতির কাপড় পরিয়া  জলখাবার গুছাইয়া রাখিতেছে। আর তাহারই মধ্যে   বারংবার জানালার দিকে দৃষ্টি চলিয়া যাইতেছে। খোকা-খুকুরা অপেক্ষা করিতেছে  দম  দেওয়া পুতুল কি একটা লবেনজুসের।     শ্যামাপ্রসাদ নৌকার ছইয়ের ভিতরে শুইয়া এইসবই আকাশপাতাল ভাবিতেছিল।  নৌকা স্বরূপগঞ্জের পাশ দিয়ে আসিবার সময় ভাঙ্গা মেলার দিকে কিয়ৎক্ষণ তাকাইয়াছিল সে। মেলা শেষ হইয়া গিয়াছে বোধকরি ।  অদ্